Wednesday, December 8, 2021
Homeরাজনীতিখালেদা জিয়া শংঙ্কামুক্ত

খালেদা জিয়া শংঙ্কামুক্ত

রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বায়োপসি করা হয়েছে। তিনি এখন শঙ্কামুক্ত। তবে চিকিৎসকদের পর্যবেক্ষণে রয়েছেন তিনি। সোমবার (২৫ অক্টোবর) দুপুর পৌনে ১টায় তাঁকে অপারেশন থিয়েটারে নেয়া হয়। বায়োপসি শেষে বিকেল ৩টা ৫০ মিনিটে খালেদা জিয়াকে অপারেশন থিয়েটার থেকে বের করে কেবিনে স্থানান্তর করা হয়। হাসপাতালের একটি সূত্র এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

বিকেলে সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া সুস্থ আছেন। তিনি এখন শঙ্কামুক্ত। তার বায়োপসির পরে পরে, দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান এবং ছোট ছেলের স্ত্রী শমীলা রহমান সিঁথির সঙ্গে কথা বলেছেন।

সোমবার বিকেলে খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য বিষয়ে সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। ছবি: ভোরের কাগজ
এর আগে খালেদা জিয়ার বড় বোন সেলিমা ইসলাম বলেন, তার (খালেদা জিয়া) অবস্থা ভালো না। জ্বর আসে, কিডনির সমস্যা আছে, সুগার নিয়ন্ত্রণে আসছে না। আরও নানা জটিলতা আছে। এ জন্য আমরা সরকারকে বারবার বলেছি যে তাঁকে বিদেশে পাঠাব। কিন্তু সরকার তো কিছুতেই রাজি হচ্ছে না। তাঁর যে জটিলতা, এখানে এর চিকিৎসা সম্ভব নয়, বিদেশে যেতে হবে।

চিকিৎসক সূত্র মতে, খালেদা জিয়া বহু বছর ধরে আর্থারাইটিস, ডায়াবেটিস, দাঁত ও চোখের সমস্যাসহ নানা জটিলতায় ভুগছেন। বর্তমানে শরীরের তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণে রাখতে তাকে এন্টিবায়োটিক দেওয়া হচ্ছে। নতুন করে কিডনি সমস্যা বেড়েছে, রক্তের হিমোগ্লোবিনেরও ঘাটতি রয়েছে। এর মধ্যে আবার থেমে থেমে জ্বর আসায় একাধিক স্বাস্থ্য পরীক্ষা করানো হচ্ছে।

এদিকে আরেকটি সূত্র জানায়, গত রবিবার লন্ডন থেকে ঢাকায় পৌঁছে কিছুক্ষণ বিশ্রাম নিয়ে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে দেখতে যান আরাফাত রহমান কোকোর স্ত্রী সৈয়দা শর্মিলা রহমান সিঁথি।

রাত সোয়া ৯টার দিকে এভারকেয়ার হাসপাতালে প্রবেশ করেন শর্মিলা সিঁথি। এরপর বের হন রাত ১১টার। বর্তমানে তিনি খালেদা জিয়ার গুলশানের বাসভবন ফিরোজায় আছেন বলেও জানা গেছে। বিএনপি ও বিভিন্ন সংস্থার সূত্রে এমন তথ্য জানা গেছে। খালেদা জিয়ার জন্য তিনি কিছু ফলমূল সঙ্গে করে নিয়ে যান।

বিএনপির চেয়ারপারসনের মিডিয়া উইংয়ের সদস্য শায়রুল কবির খান জানান, বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সোমবার বেলা ১১টা ২০ মিনিটের দিকে চেয়ারপাসনকে দেখতে এভার কেয়ার হাসপাতালে যান।

গত ১২ অক্টোবর জ্বর আসায় খালেদা জিয়াকে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। বর্তমানে তিনি এভার কেয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। এর আগে করোনাভাইরাসসহ বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হয়ে টানা ৫৪ দিন একই হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন।

RELATED ARTICLES
- Advertisment -
Google search engine

Most Popular

Recent Comments