Monday, August 8, 2022
Homeবিজ্ঞান ও প্রযুক্তিটেলিটকের কাছে প্রথম কিস্তির ১০০ কোটি টাকা চেয়েছে বিটিআরসি

টেলিটকের কাছে প্রথম কিস্তির ১০০ কোটি টাকা চেয়েছে বিটিআরসি

রাষ্ট্রায়ত্ত মোবাইল ফোন অপারেটর টেলিটকের কাছে তরঙ্গ ফি বাবদ প্রথম কিস্তির ১০০ কোটি টাকা চেয়েছে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি)।

বিটিআরসির অর্থ হিসাব বিভাগ থেকে টেলিটকের ব্যবস্থাপনা পরিচালকের কাছে গত ১ আগস্ট সই করা এ চিঠি পাঠানো হয়।

চিঠিতে বলা হয়, টেলিটক বাংলাদেশ লিমিটেডের কাছে বিটিআরসির স্পেকট্রাম বিভাগ থেকে পাঠানো চিঠি মোতাবেক ২ হাজার ৬০০ মেগাহার্জ ব্যান্ডের তরঙ্গ বরাদ্দ ফি-২০২২ এর প্রথম কিস্তির ১০ শতাংশ বাবদ অগ্রিম আয়কর ১০ শতাংশ হারে উৎসে কর্তনপূর্বক ৯৩ লাখ ৩৯ হাজার ৭০১ টাকা এবং মূসক বাবদ ৭ দশমিক ৫ শতাংশ হারে ৭৭ লাখ ৫ লাখ ৩ হাজার ৩০৮ টাকাসহ মোট ১০০ কোটি ৭৫ লাখ ৪৩ হাজার ৯ টাকা অনতিবিলম্বে ১৫ শতাংশ হারে প্রযোজ্য বিলম্ব ফিসহ পরিশোধ করার জন্য অনুরোধ করা হলো।

এতে আরও বলা হয়, সরকারি রাজস্ব আদায়ের স্বার্থে যথাযথ কর্তৃপক্ষের অনুমোদনক্রমে এ নির্দেশনা জারি করা হলো। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে আপনার সার্বিক সহযোগিতা একান্ত কাম্য।

বিটিআরসির আয়োজনে গত ৩১ মার্চ রাজধানীর হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টালে তরঙ্গ নিলামে টেলিটক, গ্রামীণফেন, রবি ও বাংলালিংক অংশ নেয়। ফাইভজিসহ অন্যান্য সেবার মান উন্নয়নে দুই ব্যান্ডে ১০ হাজার ৬৪৫ কোটি টাকার তরঙ্গ (স্প্রেকট্রাম) কিনেছে দেশের চার অপারেটর।

নিলামে টেলিটক ২ হাজার ৩০০ মেগাহার্জ ব্যান্ডে ১ হাজার ৬৮০ কোটি টাকায় ৩টি ব্লকে ৩০ মেগাহার্টজ তরঙ্গ কিনেছে। বাংলালিংক ২ হাজার ৩০০ মেগাহার্জ ব্যান্ডে ৪টি ব্লকে ৪০ মেগাহার্টজ তরঙ্গ কিনেছে ২ হাজার ২৪১ কোটি টাকায়।

আর রবি ২ হাজার ৬০০ মেগাহার্জ ব্যান্ডে ৬টি ব্লকে ৩ হাজার ৩৬০ কোটি টাকায় কিনেছে ৬০ মেগাহার্টজ তরঙ্গ। গ্রামীণফোন ২ হাজার ৬০০ মেগাহার্জ ব্যান্ডে ৬টি ব্লকে ৩ হাজার ৩৬০ কোটি টাকায় কিনেছে ৬০ মেগাহার্টজ তরঙ্গ।

অর্থাৎ দুই ব্যান্ডে মোট ১৯০ মেগাহার্জ তরঙ্গ কিনেছে চার অপারেটর।

ওই নিলামে ২ দশমিক ৩ গিগাহার্জ ও ২ দশমিক ৬ গিগাহার্জ ব্যান্ডের তরঙ্গ মোবাইল অপারেটরদের অনুকূলে বরাদ্দের জন্য ১৫ বছরের জন্য প্রতি মেগাহার্জ তরঙ্গের ভিত্তি মূল্য ৬ মিলিয়ন মার্কিন ডলার নির্ধারণ করা হয়েছিল। এক্ষেত্রে অপারেটরকে নতুন প্রাপ্ত তরঙ্গের মোট অধিগ্রহণ মূল্যের ১০ শতাংশ ৩০ জুনের মধ্যে পরিশোধ করার শর্ত দেওয়া হয়। সংশ্লিষ্ট অপারেটরকে ১ জুলাই থেকে ২০২৩ সালের ১ জানুয়ারির মধ্যে মূল তরঙ্গ বরাদ্দপত্র কমিশন থেকে গ্রহণ করতে হবে। তরঙ্গ বরাদ্দপত্র জারির তারিখ থেকে প্রতি এক বছর অন্তর বাৎসরিক ১০ শতাংশ হারে বাকি ৯০ শতাংশ চার্জ ৯টি কিস্তিতে ৯ বছরের মধ্যে পরিশোধ করতে হবে। তরঙ্গের মেয়াদ প্রাথমিকভাবে ২০৩৩ সালের ১৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত থাকবে। এক্ষেত্রে সমন্বিত মোবাইল লাইসেন্স জারির পর প্রযোজ্য ফি পরিশোধ সাপেক্ষে উক্ত তরঙ্গের মেয়াদ ১৫ বছরের জন্য বৃদ্ধি করার সুযোগ রাখা হয়।

বিটিআরসির একজন কর্মকর্তা বাংলানিউজকে জানিয়েছেন, তরঙ্গ বরাদ্দের জন্য গ্রামীণফোন ও রবি প্রথম কিস্তি পরিশোধ করেছে। বাংলালিংক প্রথম কিস্তির জন্য ১৫ শতাংশসহ পরিশোধের শর্তে এক বছর সময় নিয়েছে। তবে টেলিটক এখনও পরিশোধ করেনি। এজন্য টেলিটককে চিঠি দেওয়া হয়েছে।

সরকারের নির্বাচনী ইশতেহার-২০১৮ এর লক্ষ্য ও পরিকল্পনায় বলা হয়েছে, ২০২১-২০২৩ সালের মধ্যে ৫জি চালু করা হবে। আধুনিক বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে সময়োপযোগী, অর্থনৈতিকভাবে গ্রহণযোগ্য ও কারিগরিভাবে বাস্তবসম্মত উপায়ে বাংলাদেশে ৫জি সেবা চালুর জন্য ২ দশমিক ৩ গিগাহার্জ, ২ দশমিক ৬ গিগাহার্জ ও ৩ দশমিক ৫ গিগাহার্জ ব্যান্ড ৩টি নির্ধারণ করা হয়েছে।

অপারেটরভিত্তিক তরঙ্গের সর্বশেষ হিসাবে গ্রামীণফোনের মোট একসেস তরঙ্গ ৪৭ দশমিক ৪০ মেগাহার্জ থেকে ১০৭ দশমিক ৪০ মেগাহার্জে উন্নীত হয়। রবির মোট একসেস তরঙ্গ ৪৪ মেগাহার্জ থেকে ১০৪ মেগাহার্জে উন্নীত হয়। বাংলালিংকের মোট একসেস তরঙ্গ ৪০ মেগাহার্জ থেকে ৮০ মেগাহার্জে উন্নীত হয়। টেলিটকের মোট একসেস তরঙ্গ ২৫ দশমিক ২০ মেগাহার্জ থেকে ৫৫ দশমিক ২০ মেগাহার্জে উন্নীত হয়।

RELATED ARTICLES
- Advertisment -
Google search engine

Most Popular

Recent Comments